logo

Our Blog

ভ্যাকুয়াম প্যাকিং সিলিং মেশিনের বিস্তারিত

স্টেইনলেস স্টিলের বডি ম্যাটারিয়াল

কম সময়ে, অধিক পরিমানে খাবার কে বায়ুরোধ করে প্যাকিং করার জন্য ভ্যাকুয়াম সিলিং মেশিনের প্রয়োজন হয়। এর বডি অত্যাধুনিক ম্যাটারিয়াল দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। মেশিনের উপরের ও ভিতরের পুরো বডিটাই SUS 304 স্টেইনলেস স্টিলের গ্রেড দ্বারা তৈরি। ফলে সহজেই মেশিন কোনো ধরনের মরীচা পড়বেনা, পরিষ্কার রাখা যায় ও স্বাস্থ্যসম্মত খাবারের প্যাক্যেটজাতের নিশ্চয়তা দেওয়া যায়। মেশিনের স্ট্রিপ্স গুলো সিলিকনের তৈরি। ডাবল চেম্বারের মেশিন গুলোতে চার টি করে সিলিং স্ট্রিপ্স থাকে।

ইন্ডিপেন্ডেন্ট হিটিং টেম্পারেচার

প্যাকিং প্রসেস করার পুর্বে ব্যাবহারকারী স্বাধীন ভাবে প্যারামিটারস সেট করে নিতে পারে। এতে রয়েছে ভ্যাকুয়াম টাইম, হিটিং টেম্পারেচর। ৩ ধরনের হিটিং টেম্পারেচর রয়েছে। প্রথমত, লো টেম্পারেচার, মিডিয়াম টেম্পারেচার ও হাই টেম্পারেচার। মেশিন চালানোর পুর্বে অবশ্যই লো টেম্পারেচার দিয়ে ভ্যাকুয়াম পাম্পকে আস্তে আস্তে হিট করে নিতে হবে। এই ফিচার থাকার ফলে সিলিং বার টি শর্ট সার্কিট থেকে নিরাপদ থাকে।

একাধিক চেম্বার

আমাদের এই ভ্যাকুয়াম মেশিনে দুই ধরনের চেম্বার হয়ে থাকে। একটি হলো সিংগেল চেম্বার ও অন্যটি হলো ডাবল চেম্বার। সিংগেল চেম্বারের চেয়ে ডাবল চেম্বারের সুবিধা অনেক বেশি। ইউজার ফ্রেন্ডলি কন্ট্রোল প্যানেলের জন্য মেশিনটির ব্যাপক জনপ্রিয়তা ব্যাপক। ডাবল চেম্বারের মধ্যেও দুই ধরনের মেশিন পাওয়া যায়। একটি হল ইনডিভিজুয়ালি মেশিন, যা দ্বারা এক পাশের চেম্বারে খাবার বা প্রডাক্টস রেখে প্যাকিং করে তারপর অন্য চেম্বারের প্রডাক্টসকে প্যাকিং করা হয়। কিন্তু নন-ইনডিভিজুয়াল মেশিনে দুই চেম্বারে একসাথে প্রডাক্টস রেখে একসাথে পাকিং করা যায়। প্রতিটি চেম্বারে দুইটি করে সিলিং বার রয়েছে।

সাইকেল টাইম

উচ্চ গতি সম্পন্ন ভ্যাকুয়াম প্যাকিং মেশিনটি কম্প্যাক্ট কাঠামোয় তৈরি। অপারেটিং এর সময় শব্দ তুলনামূলক কম হয়। আপনি সর্বনিম্ন ১০ সেকেন্ড ও সর্বোচ্চ ৪০ সেকেন্ডে একটি প্রোডাক্ট প্যাকিং করতে পারেন। আরো সহজ করে যদি বলি তাহলে প্রতি মিনিটে আপনি ১-৪ টি প্রোডাক্টস প্যাকিং ও সিলিং করতে পারবেন।  

স্মার্ট কন্ট্রোল প্যানেল

ভ্যাকুয়াম প্যাকিং মেশিনের পুরো কন্ট্রোল প্যানেলটিকে উন্নত ডিজাইনে তৈরি করা হয়েছে। কন্ট্রোল প্যানেলে রয়েছে একটি ভ্যাকুয়াম মিটার, ইন্ডিকেটর লাইট, টাইম সেটিংস ডিস্প্লে, সময় বাড়ানো কমানোর জন্য রয়েছে আলাদা দুইটি সুইচ, প্রোগ্রাম সিলেক্টশনের জন্য রয়েছে একটি বাটন, মানে কত তাপমাত্রায় সিলিং/প্যাকিং করতে পারবেন তার জন্য এই বাটনটি কাজ করে। ইমারজেন্সি মেশিন বন্ধ করার জন্য রয়েছে একটি লাল বাটন। সম্পুর্ন LCD কন্ট্রোল প্যানেলটি ওয়াটারপ্রুফ।

সেরা ভ্যাকুয়াম পাম্ব

মেশিনের খুবই গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হল ভ্যাকুয়াম পাম্প। বাণিজ্যিক উদ্যেশে নির্মিত এই ভ্যাকুয়াম প্যাকিং মেশিনে রয়েছে সেরা মানের শক্তিশালী টপ গ্রেডেট রোটারি ভ্যাকুয়াম পাম্প। মেশিনের কর্মক্ষমতা নির্ভর করে পাম্পে নিয়মিত তেল নিষ্কাশন ও চেক করে পুনরায় তেল ভরাট করার উপর।এই পাম্পে হাইড্রলিক তেল ব্যাবহার করা হয়। তেল ভরার পর মেশিনকে কিছুক্ষন বিশ্রামে রাখতে হবে। পরিবেশ বান্ধব এই ভ্যাকুয়াম পাম্পটি প্যাকেটের ভিতরের বাতাস কে বাহিরে বের করে প্রোডাক্টসকে প্যাকেটের সাথে শক্ত ভাবে লাগিয়ে রাখে। একজাস্টেবল কুলিং ফ্যানের জন্য এর চারপাশ পরিষ্কার ও ঠান্ডা থাকে।ফলে ভ্যাকুয়াম পাম্পটি দীর্ঘদিন সুরক্ষা থাকে।

পাওয়ার

ভ্যাকুয়াম মেশিন যেহেতু ইমপোর্ট করা সেহেতু অনেকের মনে প্রশ্ন থাকতে আরে যে, আমাদের দেশের বিদ্যুত দিয়ে এই মেশিন চালানো যাবে কি না। ভিন্ন ইলেক্ট্রিক সাপ্লাই হলেও এই মেশিন আমাদের দেশের ভোল্টেজ ও ফ্রিকোয়েন্সী সাতে মিল রেখেই তৈরি করা হয়েছে। আপনি চাইলে এই মেশিনে দেশীয় ইলেকট্রিক্যাল উপকরণ ব্যাবহার করতে পারবেন। প্রফেশনাল এ মেশিনটি ৩ ফেজ বা ৩৮০ ভোল্টেজে সহজেই চলতে পারে। সাধারণত এটি বাণিজ্যিক ভাবে বেশি ব্যাবহার হয় বলে বাসা বাড়ির নিম্ন ভোল্টেজে চালানো হয় না। বাসা বাড়িতে ব্যাবহারের জন্য মিনি ভ্যাকুয়াম প্যাকিং মেশিন পাওয়া যায়। ১.৫ কিলোওয়াট পাওয়ার থেকে ৩.০০ কিলোওয়াট পাওয়ার খরচ হয়। স্ট্যাবল পারফরম্যান্স ও দীর্ঘ সার্ভিসের নিশ্চয়তা প্রদান করে ৫০ হার্জ ফ্রিকোয়েন্সি বিশিষ্ট এই মেশিন।            

ব্যাবহারের পর সহজে পরিষ্কারযোগ্য

মেশিনের কর্মদক্ষতা বজায় রাখার জন্য নিয়মিত মেশিনকে যত্ন নিয়ে পরিষ্কার করা উচিত। মেশিনটি স্টেইনলেস স্টিলের হওয়ার কারণে সহজেই পরিষ্কার করা যায়। ব্যাবহারের পর অবশ্যই পরিষ্কার করতে হবে। মাঝে মাঝে ভ্যাকুয়াম পাম্পের তেল পরিবর্তন করে নতুন তেল দিতে হবে। প্রোডাক্টে কোনো প্রকার ক্যামিক্যাল প্রিসার্ভেটিভ দেয়া লাগেনা। প্রিসার্ভেটিভস ছাড়াই দির্ঘদিন সংরক্ষণ করা যায়। মেশিনের মেইনট্যানেন্সের খরচ কম।

ব্যাবহারের ক্ষেত্র

বাণিজ্যিকভাবে এই ভ্যাকুয়াম মেশিন বেশি ব্যাবহৃত হয়। বিভিন্ন শিল্প কারখানা যেমন, সবজি শিল্প, স্লটারহাউজ, ফুড প্রসেসিং ইন্ডাস্ট্রি, এগ্রিকালচার ইন্ডাস্ট্রি, সী ফুড প্রসেসিং, ইলেক্ট্রনিক্স, হার্ডওয়ার প্রোডাক্টসের ফ্যাক্টরি, মেডিক্যাল ইনস্ট্রুমেন্টস এ ভ্যাকুয়াম প্যাকিং মেশিন বহুল ব্যাবহৃত হয়। তাছাড়া বিভিন্ন ইন্ডাস্ট্রিয়াল গুলোতে দ্রুত খাদ্য প্যাকিং করার কাজেও এই মেশিন খুবই গুরুত্বপুর্ন। এতে যেমন সময় বাচে, তেমন অর্থও বাচে।


এই মেশিন সম্পর্কে কিছু কমন প্রশ্ন ও উত্তর জেনে নেয়া যাকঃ 


ভ্যাকুয়াম প্যাকিং কি?

উচ্চ প্রযুক্তি ব্যাবহার করে যেকোনো প্রোডাক্টসকে প্যাকেটজাত করে বাজারজাতকরণ করাকে ভ্যাকুয়াম প্যাকিং বলে। এই পদ্ধতিতে প্যাকেটের ভিতর কোনো বাতাস থাকেনা। ফলে দীর্ঘদিন গুনাগুণ অক্ষুণ্ণ রেখে প্রোডাক্টসকে সংরক্ষণ করা যায়। আমাদের এই মেশিনটী সম্পুর্ন বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যেই ব্যাবহার করা হয়।

  

ভ্যাকুয়াম চেম্বার সিলার কি?

কমার্শিয়াল ভ্যাকুয়াম চেম্বার দ্বারা বিভিন্ন খাবারকে প্লাস্টিক ব্যাগ দ্বারা সিল করা হয়। ভ্যাকুয়াম প্রযুক্তি দ্বারা খাবার/প্রডাক্টসের ভিতরের বাতাস ও চেম্বারের বাতাসকেও বের করে স্ট্রিপসের মাধ্যমে প্যাকেটকে সিলিং করা হয়। এইরকম একটি চেম্বারে দুইটি করে সিলিং স্ট্রিপ্স থাকে যা দ্বারা প্লাস্টিক ব্যাগটিকে আটকিয়ে রাখা হয়।

আপনাদের মেশিন দিয়ে যেকোনো ওজনের/সাইজের প্রোডাক্টস সিলিং করা যায়?

এটা আপনার মেশিনের ক্যাপাসিটি ও সাইজের উপর নির্ভর করবে। আমাদের কাছে বিভিন্ন মডেল ও সাইজের ভ্যাকুয়াম প্যাকিং মেশিন পাবেন।

  

ভ্যাকুয়াম প্যাকিং মেশিনটির সাইজ কত?

কমপ্যাক্ট ডিজাইনে তৈরি আমাদের এই ভ্যাকুয়াম প্যাকিং মেশিনের দৈর্ঘ ১৪৭০ * ৭৫০ * ৯৫০ মিলিমিটার। তবে আপনার চাহিদা মোতাবেক অন্যান্য সাইজের ভ্যাকুয়াম প্যাকিং মেশিন আমরা সরবরাহ করতে পারবো।  

ভ্যাকুয়াম প্যাকিং মেশিনটির ওজন কত?

আমাদের মেশিনের ওজন ১৫০ কেজি। কিছু কম বেশি হতে পারে।


ভ্যাকুয়াম প্যাকিং সিলিং মেশিনের বডি ম্যাটারিয়াল কি?

অটোমেটিক ভ্যাকুয়াম প্যাকিং মেশিনটি অত্যাধুনিক SUS304 স্টেইনলেস স্টিলের উপাদান দিয়ে বানানো হয়েছে। প্রতিটি চেম্বারে দুইটা করে সিলিং স্ট্রিপ্স থাকে,এগুলো সিলিকনের তৈরি। সিলিকন ও স্টেইনলেস স্টিলের হওয়ার কারণে স্বাস্থ্যকর উপায়ে খাবার কিংবা অন্যান্য প্রোডাক্টস প্রসেস করা যায়।

 

ভ্যাকুয়াম প্যাকিং মেশিন কি ২২০ ভোল্টেজ নাকি ৩৮০ ভোল্টেজে চলে?

এই মেশিন ৩৮০ ভোল্টেজে চলে। এটি ৩ ফেজ বিশিষ্ট মেশিন।


সিংগেল ও ডাবল চেম্বারের ভ্যাকুয়াম প্যাকারের পার্থক্য কি?

সিংগেল চেম্বার ভায়কুয়াম প্যাকিং মেশিনে একটি মাত্র চেম্বার দিয়ে খাবার বা অন্যান্য প্রোডাক্টস প্যাকিং ও সিলিং করা হয়। ছোট ছোট প্যাকেটের প্যাকিং ও সিল করার জন্য সিংগেল চেম্বার ব্যাবহার করা সুবিধা বেশি। একজন অপারেটর দিয়েই এই মেশিন চালানো যায়।

ডাবল চেম্বার ভ্যাকুয়াম প্যাকিং মেশিন দ্বারা মিডিয়াম বা বড় টাইপের প্রোডাক্টস গুলো প্যাকিং ও সিল করা হয়। এতে দুই চেম্বার বিশিষ্ঠ এই ভ্যাকুয়াম রুম থাকে। কভার সুইং করার মাধ্যমে কম সময়ে অধিক পরিমাণ প্রোডাক্টস প্যাকিং ও সিলিং করা হয়।


কি ধরনের ভ্যাকুয়াম ব্যাগ এই ভ্যাকুয়াম প্যাকিং মেশিনে ব্যাবহার করা যায়?

ল্যামিনেটেড প্লাস্টিক ব্যাগ ও এলুমিনিয়াম ফলয় ব্যাগ বেশি ব্যাবহার করা হয়। এই ব্যাগ গুলো জীবাণু মুক্ত, তেল-প্রতিরোধী, সুর্যের আলো প্রবেশ করতে পারেনা এবং সুঘ্রাণ আটকে রাখে।  

ভ্যাকুয়াম পাম্পে কি ধরনের তেল ব্যাবহার করা হয়?

ISO 46 হাইড্রলিক তেল ব্যবহার করতে পারেন ।


ডাবল চেম্বার ভ্যাকুয়াম প্যাকিং মেশিনের সুবিধা কি কি?

 ১.  অল্প জায়গায় মেশিনটি বসানো যায় এবং সহজে নাড়াচাড়া করানো যায়।  

 ২. কম সময়ে দ্রুত প্যাকিং ও সিলিং করা যায়।

 ৩. সিলিং এর গুনগত মান অনেক ভালো হয়। মজবুত হয়, সহজে ছিড়ে না।

 ৪. একই সাথে বিভিন্ন কোয়ালিটির, সাইজের বিভিন্ন প্রোডাক্টস / খাদ্যসামগ্রী সিল করা যায়।

 ৫. ইন্সটল এর বাড়তি কোনো ঝামেলা নাই।

 ৬. সহজেই মেইনটেনেন্স করা যায়।

 ৭. মেশিনটি স্টেইনলেস স্টিলের তৈরি বিধায় সহজেই পরিষ্কার করা যায়। তাছাড়া ভ্যাকুয়াম  

     প্যাকেজিং খাদ্যে ছত্রাক ও ব্যাকটেরিয়া আক্রমণ করতে পারেনা। ফলে প্যাকেটজাত খাবারটি  

     দীর্ঘদিন স্বাস্থ্যকর থাকে।

 ৮. ভ্যাকুয়াম পাম্পের তেলের অবস্থান বাহির থেকে পর্যবেক্ষন করা যায়।

 ৯. ফ্রিজার বার্ন প্রতিরোধ করে।


এই মেশিন দিয়ে কি প্যাকেটের গায়ে তারিখ বসানো যাবে?

হ্যাঁ, মেশিনে ০-৯ পর্যন্ত সংখ্যা আছে। আপনি চাইলে প্যাকেটের গায়ে তারিখ প্রিন্ট দিতে পারবেন। নাম্বার উল্লেখ করে সিলিকন স্ট্রিপের নিচে সিলিং এর জন্য রাখতে হবে। হিট ও সিলিং পিরিয়ড পার হলেই ডেট প্রিন্ট হয়ে যাবে।

কি কি কাজে এই মেশিন ব্যাবহার করা যেতে পারে?

 ভ্যাকুয়াম প্যাকিং মেশিন দিয়ে একই সাথে ভ্যাকুয়াম ও প্যাকেট সিলিং দুটো কাজ করে। এই মেশিনের মাধ্যমে সাধারণত প্রিজার্ভড ফল, বিভিন্ন ফল, আচার, বিভিন্ন শস্যদানা, ওষুধি উপকরণ, ইলেক্ট্রনিক্স উপকরণ খাদ্য সংরক্ষনের জন্য প্যাকিং ও সিলিং করা হয়। মেশিনটি প্যাকিং করার পাশাপাশি সিল করে দিবে। এর পাশাপাশি ছোট ছোট বস্তুও আপনি চাইলে প্যাকিং করতে পারবেন। টাকা কিংবা ফিনান্সিয়াল ডকুমেন্টস কিংবা ভাউচার ইত্যাদি যেন ড্যাম না হয় তার জন্য এই বায়ুরোধী প্যাকিং ও সিলিং মেশিন ব্যাবহার করতে পারেন। ভ্যাকুয়ামকৃত খাবারে পুর্বের স্বাদ বজায় থাকে এবং বাতাসের সংস্পর্শে না আসার কারণে খাবার দীর্ঘদীন সংরক্ষণ করা যায়।    

কোন কোন জায়গায় এই মেশিন ব্যাবহার করা যেতে পারে?

বিভিন্ন শুকনা খাবার যেমন চা,সবজি,শস্যদানা ইত্যাদির ইন্ডাস্ট্রিজ গুলোতে, ফাস্ট ফুড ও রেস্টুরেন্ট, মেডিসিন শপ, রিসার্চ ইন্সটিটিউট গুলো তে এই প্রফেশনাল ভ্যাকুয়াম প্যাকিং মেশিন ব্যাবহার করা হয়।

কমার্শিয়াল ভ্যাকুয়াম মেশিনটি কিভাবে ইন্সটল করতে হবে?   

১. প্রথমত ভ্যাকুয়াম প্যাকিং সিলিং মেশিনটী সমতল জায়গায় সেট করতে হবে।

২. ভ্যাকুয়াম পাম্পের তেল পরিমাণ মত আছে কিনা তা চেক করে নিতে হবে। মেশিনের বাহিরের অংশে ভ্যাকুয়াম পাম্পের তেলের পরিমাণ দেখা যায়। ৩ ভাগের ২ অংশ তেল দিয়ে ভরাট রাখতে হবে।

৩. পাওয়ার সাপ্লাই ঠিক আছে কিনা তা চেক করে নিতে হবে। প্রোডাক্টস রাখার আগেই ভ্যাকুয়াম পাম্প ও মটর ঠিকভাবে ঘুড়তেছে কিনা তা চেক করে নিতে হবে।

এই মেশিন দিয়ে কিভাবে প্রোডাক্ট প্যাকেটিং ও সিল করা হয়?

১. পাওয়ার চালু দিতে হবে।

২. প্লাস্টিক ব্যাগের ভিতর প্রোডাক্টস ভরে মেশিনের প্লেটের উপর রাখতে হবে। প্লাস্টিকের ব্যাগটি সমান

    ও পরিষ্কার আছে কিনা তা চেক করে নিতে হবে। আপনি চাইলে এলুমিনিয়াম ফয়ল ব্যাগও ব্যাবহার

    করতে পারেন।

৩. ম্যানুয়ালি ভ্যাকুয়াম বাটনে প্রেস করে প্লেটটি ঢেকে দিতে হবে। এতে ভিতরের বাতাস বাহিরে বের হয়ে যাবে। অতঃপর সিলিং বাটনে প্রেসের মাধ্যমে প্যাকেটটির সিলিং প্রক্রিয়াও সম্পন্ন হয়ে যায়।  

৪. এভাবে পুনরায় ম্যানুয়ালি ভ্যাকুয়াম বাটনে প্রেসের মাধ্যমে মেশিনের অপর অংশেও অন্যান্য প্রোডাক্টসের প্যাকেট প্যাকিং ও সিলিং করা হয়। আপনি চাইলে মাত্র একটি প্রোডাক্টসও প্যাকিং করতে পারেন কিংবা অনেকগুলো প্রোডাক্টস একই সাথে প্যাকিং ও সিলিং করতে পারেন। পুরো প্রক্রিয়াটির প্রসেস সম্পুর্ন করতে কত সময় লাগে তা প্যাকেটের সাইজের উপর নির্ভরশীল, যেমন কোনো কোনো মেশিন দিয়ে ১০ থেকে ৩৫ সেকেন্ড কিংবা কোনো কনো মেশিনে ১০-২৫ সেকেন্ডে পুরো প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা যায়। তবে গড়ে প্রতিটি চেম্বারে প্রতি মিনিটে ১-৪ টি প্যাকেট প্যাকিং ও সিলিং করা যায়।

৫. কমপ্লিট প্যাকগুলো বের করে আবার নতুন প্রোডাক্ট কে প্যাকিং করা জন্য প্লেটে রাখতে হবে।  


 মেশিনটি কিভাবে রক্ষণাবেক্ষণ করব? এর রক্ষণাবেক্ষন খরচ কি খুব বেশি?

 মেশিন দ্বারা প্যাকিং কোয়ালিটি ঠিক রাখার জন্য যথাযথ রক্ষণাবেক্ষন খুব জরুরী। যা খুব সীমিত খরচেই সম্ভব।

১.   নিয়মিত ভ্যাকুয়াম পাম্পে তেলের উপস্থিতি চেক করতে হবে। তেলের পরিমাপ সবসময় ২/৩ কিংবা ৩/৪ ভাগ রাখবেন। সর্বদা ভালো মানের তেল ব্যাবহার করুন।

২. ভ্যাকুয়াম পাম্পে তেলের রঙ কালো কিংবা অফ হোয়াইট রঙের হয়, তেল যদি পানি পড়ে যায় তাহলে দ্রুত তেল পরিবর্তন করে নিবেন। সাধারণত ২/১ মাসে একবার তেল পরিবর্তন করার দরকার পড়ে।

৩. ২/৩ মাসে একবার করে ম্যাগনেটিক ভাল্বস পরিবর্তন করলে মেশিনের কর্মদক্ষতা সুরক্ষা থাকবে।

৪. প্রতি ৪০-৫০ দিনে একবার করে রড বিয়ারিং, স্প্রিং এর হুক পয়েন্টসে, হুইল বিয়ারিং এ লুব্রিকেন্টস তেল ব্যাবহার করতে হবে।

৫.  নিয়মিত মেশিনের উপকরণ গুলো পরিষ্কার রাখতে হবে, বিশেষ করে হিটিং বার ও সিলিকনের স্ট্রিপ্স গুলো তো অবশ্যই।

মেশিনের ওয়ারেন্টি কত বছরের?

বাণিজ্যিক এই ভ্যাকুয়াম প্যাকিং সিলিং মেশিনে রয়েছে ১ বছরের ফ্রি সার্ভিস ওয়ারেন্টি । এই সময়ের মধ্যে মেশিনে কোনো সমস্যা দেখা দিলে আমাদের সার্ভিসিং টিম দ্রুত সময়ে অনলাইনে কিংবা অফলাইনে সমস্যা সমাধান করে দিবে। এক্ষেত্রে যদি কোনো পার্টস ক্রয় করা লাগে তবে তা আমাদের কোম্পানি খরচ বহন করবেনা, আপনাকে পার্টসের মূল্য পরিশোধ করতে হবে। ১ বছরের পর যদি মেশিনে সমস্যা দেখা দেয় তবে সেক্ষেত্রে সার্ভিসিং চার্ট অনুযায়ী পেমেন্ট করতে হবে

Mr. Mahin
+8801810004009
Whatsapp
nobarunbd@gmail.com

H#199 (1st Floor), R#01, New DOHS Mohakhali, Dhaka-1206, Bangladesh

Categories

সুপারশপের র‍্যাক

কমার্শিয়াল কিচেন ইকুইপমেন্ট

রেস্টুরেন্ট ইকুইপমেন্ট

কার পার্কিং ম্যানেজমেন্ট

ডিজিটাল গেট সিস্টেম

মেটাল ডিটেকটর সিস্টেম

রোড সেফটি প্রোডাক্টস

সুপারশপ ফ্রিজ

সুপারশপ ইকুইপমেন্ট

স্পেশাল প্রোডাক্টস

স্লটারহাউজ ইকুইপমেন্ট

কোল্ড স্টোরেজ সমাধান