logo

Our Blog

মানি কাউন্টিং ও জাল টাকা ধরার মেশিন কেনো ব্যবহার করবেন

মানি কাউন্টিং ও জাল টাকা ধরার মেশিন কেনো ব্যবহার করবেন

  • দ্রুত এবং নির্ভুল গননাঃ এই অটোমেটিক মানি কাউন্টিং ও জাল টাকা ধরার মেশিনের মাধ্যমে আপনি যে কোন সাইজের ব্যাংক নোট ১০০% নির্ভুলভাবে এবং খুব দ্রুত গণনা করতে পারবেন যা এই মেশিনের ১ নাম্বার বৈশিষ্ট। কোন রকম কষ্ট ছাড়াই এই মেশিনের সাহায্যে ১০০ টি নোট গণনা করতে পারবেন মাত্র ৫-৬ সেকেন্ড সময় মধ্যে।
  • একাধিক নোট বা কারেন্সি গণনা সুবিধাঃ এই কাউন্টিং মেশিনের মাধ্যমে টাকা, ডলার, ইউরো, পাউন্ড এবং রুপিসহ আরো অনেক ধরনের নোট গণনা করার সুবিধা রয়েছে।
  • জাল নোট শনাক্ত করাঃ  এই টাকা গণনা মেশিন দিয়ে টাকা গননার সময় নির্ভুলভাবে জাল টাকা বা ফেইক নোট শনাক্ত করতে পারবেন খুব সহজেই। সেক্ষেত্রে বাংলাদেশী নোট (টাকা) গণনার ক্ষেত্রে অবশ্যই UV বাটন এবং বিদেশী নোট (ডলার, ইউরো, পাউন্ড) গণনার সময় UV এবং MG উভয় বাটন অবশ্যই চালু রাখতে হবে।
  • গুণগত মান সম্পন্ন মেশিনঃ এই অটোমেটিক মানি কাউন্টিং ও জাল টাকা ধরার মেশিনটি চীন থেকে আমদানি করা এবং এটি একটি ইউরোপিয়ান কোয়ালিটির মেশিন, এইটি আমাদের নিজস্ব ব্র্যান্ডের মেশিন এবং এই মেশিনের গুণগত মান নিয়ে আমরা আপোশ করিনি। মেশিনটি নিঃসন্দেহে একটি কোয়ালিটিফুল মেশিন যা আপনারা ব্যবহারের পর খুব সহজেই বুঝে যাবেন।
  • অন্যান্য আকর্শনীয় ফিচারঃ এই মেশিনে ব্যাচ কাউন্টিং, এ্যাড কাউন্টিং, মেশিন অটোমেটিক এবং ম্যানুয়াল মোডসহ আরো বেশ কিছু ফিচার রয়েছে যা এই মেশিন ব্যবহারে আপনাকে আরো বেশি উপভোগ্য করে তুলবে।
  • সহজ ব্যবহারঃ এই মেশিনটি জনপ্রিয় হয়ে উঠার অন্যতম একটি কারন হল এর সহজ ব্যবহার। এই টাকা গণনা মেশিনের ব্যবহার একবার দেখলে যে কেউ এই মেশিনটি ব্যবহার করে টাকা গণনা এবং জাল নোট শনাক্ত করতে পারবেন খুব সহজেই।
  • ব্যবহারের ক্ষেত্রঃ সরকারি/বেসরকারি ও দেশি/বিদেশি প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক, বিমা প্রতিষ্ঠান, মানি এক্সচেঞ্জ, এজেন্ট ব্যাংকিং, বিকাশ এজেন্ট, দোকান, আড়ত, পাইকারি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, ডিলারশীপ প্রতিষ্ঠান, এক্সপোর্ট/ইম্পোর্ট প্রতিষ্ঠানসহ সকল ধরনের আর্থিক প্রতিষ্ঠান।
  • বিক্রয় পরবর্তী সেবাঃ অটোমেটিক মানি কাউন্টিং ও জাল টাকা ধরার মেশিনটির সাথে আমরা ২ (দুই) বছরের রিপ্লেস্মেন্ট ওয়ারেন্টি দিয়ে থাকি। উক্ত সময়ের মধ্যে মেশিনের যে কোন ধরনের সমস্যা হলে আমরা বিনা টাকায় সমাধান করে দিয়ে থাকি এবং সমস্যা সমাধান করতে আমরা ব্যার্থ হলে নতুন মেশিন রিপ্লেস করে দিয়ে থাকি। যদিও বেশিরভাগ ওয়ারেন্টিজনিত সমস্যা ব্যবহারকারীর সাথে মোবাইলে কথা বলেই সমাধান হয়ে যায়। আমাদের একটি টিম সার্বোক্ষনিক অপেক্ষমান থাকে আমাদের মেশিন ব্যবহারকারীকে ওয়ারেন্টি সেবা প্রদান করার জন্য।

প্রোডাক্ট স্পেসেফিকেশন

গণনা স্পীড : ১০০০+ প্রতি ১ মিনিট
ফেইক ডিটেকশন : হ্যাঁ
ইউভি : হ্যাঁ
এমজি : হ্যাঁ
ব্যাচ কাউন্টিং : হ্যাঁ
এ্যাড কাউন্টিং : হ্যাঁ
ভোল্টেজ : ২২০ ভোল্ট
ওয়াট : ৭৫ ওয়াট
ফিউজ : ২এ
এক্সট্রার্নাল ডিসপ্লে : হ্যাঁ
হোপার ক্যাপাসিটি : ২০০ নোট
স্টেকার ক্যাপাসিটি : ১৫০ নোট
অটোমেটিক / ম্যানুয়াল অপশন : হ্যাঁ
রিপ্লেসমেন্ট ওয়ারেন্টি : ২ বছর

 

ভিডিও রিভিউঃ


কিছু প্রশ্ন ও উত্তরঃ

প্রশ্নঃ টাকা গণনা যন্ত্র বা মানি কাউন্টিং মেশিন কি?

উত্তরঃ যে মেশিন বা যন্ত্রের মাধ্যমে খুব দ্রুত গতিতে যে কোন ধরণের ব্যাংক নোট গণনা করা যায় তাকে টাকা গণনা যন্ত্র বা মানি কাউন্টিং মেশিন বলে।

-----------------------------------------------------------------------------------

প্রশ্নঃ এই মেশিনের মাধ্যামে কি জাল নোট শনাক্ত যায়?

উত্তরঃ জ্বি, এই অটোমেটিক মানি কাউন্টিং ও জাল টাকা ধরার মেশিনের মাধ্যমে নির্ভুলভাবে দেশি ও বিদেশী জাল নোট শনাক্ত যায়।

-----------------------------------------------------------------------------------

প্রশ্নঃ মেশিনটি আর কি কি সুবিধা আছে?

উত্তরঃ এইটি একটি মাল্টি ফাংশনাল মেশিন যার সাহায্যে যে কোন দেশের যে কোন সাইজের নোট গণনার পাশাপাশি ১০০% নির্ভুলভাবে জাল নোট ধরা, ব্যাচ কাউন্টিং, এ্যাড কাউন্টিং, নরমাল কাউন্টিং করা যায় অটোমেটিক এবং ম্যানুয়াল মোডে।

-----------------------------------------------------------------------------------

প্রশ্নঃ ইউভি এবং এমজি কি ও কেন ব্যবহার করা হয়?

উত্তরঃ ইউভি এর মানে আল্ট্রা ভায়োলেট ডিটেকশন আর এমজি মানে ম্যাগনেটিক ডিটেকশন। এই দুইটি পদ্ধতি ব্যবহার করে জাল বা ফেইক নোট শনাক্ত করা হয়। বাংলাদেশি টাকা জাল বা ফেইক নোট শনাক্ত করতে আল্ট্রা ভায়োলেট ডিটেকশন (UV) ব্যবহার করা হয়।  বিদেশী নোট (ডলার, ইউরো, পাউন্ড, রুপি ইত্যাদি) জাল বা ফেইক নোট শনাক্ত করার জন্য আল্ট্রা ভায়োলেট ডিটেকশন (UV) এবং ম্যাগনেটিক ডিটেকশন (MG) উভয় পদ্ধতি একত্রে ব্যবহার করা হয়। 

-----------------------------------------------------------------------------------

প্রশ্নঃ এই অটোমেটিক মানি কাউন্টিং ও জাল টাকা ধরার মেশিনটি চালালে কেমন ইলেক্ট্রিসিটি বিল আসতে পারে?

উত্তরঃ এই টাকা গণনা মেশিনটি দ্বারা টাকা গণনা করার সময় মাত্র ৭৫ ওয়াট বিদ্যুৎ খরচ করে থাকে। মানে এই মেশিনটি টানা ১০ (দশ) ঘন্টা টাকা গণনা করলে মাত্র ০.৭৫ (দশমিক পঁচাত্তর) ইউনিট বিদ্যুৎ খরচ হবে। যদি ৮ (আট) টাকা পার ইউনিট বিদ্যুৎ বিল হয় তবে ১০ (দশ) ঘন্টা টাকা গণনা করলে মাত্র ৭.৫ (সাত টাকা পঞ্চাশ পয়শা) টাকা বিদ্যুৎ বিল আসবে।

-----------------------------------------------------------------------------------

প্রশ্নঃ কেন এই মেশিনটি আপনি কিনবেন?

উত্তরঃ নির্ভুলভাবে খুব দ্রুতগতিতে যে কোন ধরণের  ব্যাংক নোট গণনা এবং গণনার পাশাপাশি একইসাথে জাল নোট শনাক্ত করার জন্য আমাদের এই কোয়ালিটিফুল মেশিনটি আপনি কিনবেন। এই মেশিনটি কিনে আপনি নিশ্চিন্তে ব্যবহার করতে পারবেন কোন রকম ঝামেলা ছাড়াই, তার নিশ্চয়তা আমরা আপনাকে দিব আমাদের বিক্রয় পরবর্তী টিমের মাধ্যমে।

-----------------------------------------------------------------------------------

প্রশ্নঃ বিক্রয় পরবর্তী সেবা কিভাবে পাবেন?

উত্তরঃ শুধু মাত্র আমাদের দেওয়া সার্ভিসের যে কোন একটি নাম্বারে কল দিয়ে আপনার সামস্যার কথা জানাবেন, আপনার কাজ শেষ। তারপর আমাদের সার্ভিস টিম থেকে মোবাইলে কথা বলে সমস্যা সমাধান করার চেষ্টা করবে, যদি সমাধান না হয় তাহলে আমাদের সার্ভিসিং সেন্টারে মেশিনটি পাঠিয়ে দিবেন, আমরা সামস্যা সমাধান করে বা সমস্যা সমাধান না হলে নতুন মেশিন আপনার ঠিকানায় পাঠিয়ে দিব। ফ্রি ওয়ারেন্টির ২ বছরের মধ্যে যদি এই সেবা প্রয়োজন হয় তাহলে আপনাকে কোন পেমেন্ট করতে হবে না, আর যদি ফ্রি ওয়ারেন্টির ২ বছর শেষ হয়ে যায় তাহলে আপনাকে আমাদের চার্ট অনুযায়ী (৫০০ টাকা থেকে শুরু করে ৩০০০ টাকা সর্বোচ্চ) পেমেন্ট করতে হবে এই সার্ভিসের জন্য।

-----------------------------------------------------------------------------------

প্রশ্নঃ অন্যদের থেকে আমাদের অটোমেটিক মানি কাউন্টিং ও জাল টাকা ধরার মেশিনের পার্থক্য কি?

উত্তরঃ অন্যদের থেকে আমাদের অটোমেটিক মানি কাউন্টিং ও জাল টাকা ধরার মেশিনের পার্থক্য কতটুকু জানি না, তবে আমাদের মেশিন নিঃসন্দেহে অনেক বেশি কোয়ালিটিফুল এবং নির্ভরযোগ্য। এই নির্ভরযোগ্যতার জন্যই আমরা সারাদেশে এখন পর্যন্ত এককভাবে এবং বাংলাদেশের কর্পোরেট জগতে ৬০০+ মেশিন বিক্রি করতে পারেছি, যার প্রায় সকল মেশিন এখনো চলমান অবস্থায় রয়েছে।

-----------------------------------------------------------------------------------

প্রশ্নঃ এই প্রোডাক্ট এর দাম কেমন?

উত্তরঃ এই প্রোডাক্টের স্থায়ী দাম ১৯,৫০০ (উনিশ হাজার পাঁচশত) টাকা মাত্র (ভ্যাট ও এআইটি ছাড়া)।

-----------------------------------------------------------------------------------

প্রশ্নঃ ঢাকায় বা বাংলাদেশে এই প্রোডাক্ট কে বা কারা বিক্রি করে? কিভাবে তাদের সাথে এই প্রোডাক্ট কেনার জন্য যোগাযোগ করতে পারি? কোন প্রোডাক্ট লিঙ্ক দিতে পারবেন কি?

উত্তরঃ এই প্রোডাক্ট নবারুন ইন্টারন্যাশনাল বিক্রি করে থাকে।

অটোমেটিক মানি কাউন্টিং ও জাল টাকা ধরার মেশিনটি ক্রয় করার জন্য নবারুন ইন্টারন্যাশনালের সাথে যোগাযোগ করার


Mr. Mahin
+8801810004009
Whatsapp
nobarunbd@gmail.com

H#199 (1st Floor), R#01, New DOHS Mohakhali, Dhaka-1206, Bangladesh

Categories

সুপারশপের র‍্যাক

কমার্শিয়াল কিচেন ইকুইপমেন্ট

রেস্টুরেন্ট ইকুইপমেন্ট

কার পার্কিং ম্যানেজমেন্ট

ডিজিটাল গেট সিস্টেম

মেটাল ডিটেকটর সিস্টেম

রোড সেফটি প্রোডাক্টস

সুপারশপ ফ্রিজ

সুপারশপ ইকুইপমেন্ট

স্পেশাল প্রোডাক্টস

স্লটারহাউজ ইকুইপমেন্ট

কোল্ড স্টোরেজ সমাধান

Product Tags
অটোমেটিকভাবে টাকা গণনা করার মেশিন অটোমেটিকভাবে টাকা গণনা করার মেশিন
ইউভি ডিটেকটর মেশিন ইউভি ডিটেকটর মেশিন
ইলেকট্রিক মানি কাউন্টার মেশিন ইলেকট্রিক মানি কাউন্টার মেশিন
কিভাবে জাল নোট ধরা যায় কিভাবে জাল নোট ধরা যায়
চায়না টাকা গণনা মেশিন চায়না টাকা গণনা মেশিন
চায়না মানি কাউন্টিং মেশিন চায়না মানি কাউন্টিং মেশিন
টাকা গণনা মেশিন টাকা গণনা মেশিন
টাকা গণনা যন্ত্র টাকা গণনা যন্ত্র
টাকা গোনার মেশিন টাকা গোনার মেশিন
টাকার মেশিন টাকার মেশিন
ফেইক নোট ডিটেকটর মেশিন ফেইক নোট ডিটেকটর মেশিন
ফেইক নোট ডেটেকটর মেশিন ফেইক নোট ডেটেকটর মেশিন
বিল কাউন্টার মেশিন বিল কাউন্টার মেশিন
ব্যাংক নোট কাউন্টিং মেশিন ব্যাংক নোট কাউন্টিং মেশিন
মানি কাউন্টিং এন্ড ফেইক নোট ডিটেকটর মেশিন মানি কাউন্টিং এন্ড ফেইক নোট ডিটেকটর মেশিন
মানি কাউন্টিং মেশিন মানি কাউন্টিং মেশিন
মানি ডিটেকটর মেশিন মানি ডিটেকটর মেশিন
সহজে টাকা গণনা পদ্ধতি সহজে টাকা গণনা পদ্ধতি
হাইব্রো মেশিন হাইব্রো মেশিন