দারুন লাভজনক ব্যবসা সুগারকেইন বা আখের রস তৈরির মেশিনঃ বিস্তারিত ভিডিও সহ

Category:
  • ১০০% স্বাস্থ্যকরঃ এই সুগারকেইন বা আখের রস তৈরির মেশিনে ব্যবহার করা হয়েছে উচ্চমানের ফুড গ্রেডের ষ্টীল, আখের রসসহ যে কোন খাবার এই ধরণের ষ্টীলের সংস্পর্শে আসলেও এর খাদ্য মান থাকে একই রকম। সুতরাং এই মেশিনটি ১০০% স্বাস্থ্যসম্মত।
  • মেশিনটির সুবিধাঃ স্বাস্থ্যসম্মত রসের পাশাপাশি এই অটোমেটিক সুগারকেইন বা আখের রস তৈরির মেশিনের পাবেন দ্রুত কাজ করার সুবিধা, এই মেশিন ধন্টায় প্রায় ৩০০ কেজি আখের রস বের করতে পারে এবং এই মেশিনে একটি আখ একবার দিলে ২য় বার আর দেওয়ার প্রয়োজন হয় না। কারন প্রথম বারেই এই মেশিন আখ থেকে প্রায় সম্পূর্ণ রস বের করতে পারে। তাছাড়া এই মেশিন ব্যবহারে খরচও অনেক কম।
  • সহজ ব্যবহারঃ এই সুগারকেন মেশিনটির সহজ ব্যবহার এর জনপ্রিয় হয়ে উঠার অন্যতম একটি কারণ এর সহজ ব্যবহার। এই অটোমেটিক আখের রস তৈরির মেশিন এর উপরের অংশে আখ ঢুকানোর একটি জায়গা রয়েছে, এই জায়গা দিয়ে আখটি মেশিনের ভিতরে ঢুকিয়ে দিলেই আপনার কাজ শেষ, মেশিনটি অটোম্যাটিকভাবে আখের রস বের করবে এবং এর ফাইবার বা আঁশ মেশিনের পিছন দিক দিয়ে বের করে দিবে। রস বের হওয়ার পর এইটি অটোম্যাটিকভাবে মেশিনে দেওয়া ছাকনীর মাধ্যমে রস পরিস্কার হয়ে একটি পাত্রে এসে জমা হবে এবং আপনি একটি কল ঘুড়িয়ে রস বের করে নিতে পাড়বেন খুব সহজেই।
  • কম বিদ্যুৎ খরচঃ এই ইলেকট্রিক মেশিনটি রস বের করা অবস্থায় মাত্র ৯৫০ ওয়াট বিদ্যুৎ খরচ করে থাকে, যা অন্যান্য মেশিন থেকে অনেক কম বিদ্যুৎ খরচ করে। এই মেশিন দিয়ে প্রতি ১ ঘন্টা আখের রস বের করলে মাত্র ৭ থেকে ৮ টাকা (একটু বেশি  বা কম হতে পারে) বিদ্যুৎ খরচ হতে পারে।
  • ব্যবহারের জায়গাঃ যে কোন জুসের দোকান / জুস বার, খাবারের দোকান, রেস্টুরেন্ট, ফুড কোর্ট এবং স্কুলের কেন্টিনে ব্যবহার করতে পারেন এই অটোমেটিক আখের রস তৈরির মেশিন।
  • মেশিনের কোয়ালিটিঃ মেশিনটি অত্যন্ত শক্তিশালী এবং উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন। এই মেশিনটি আমরা চীন থেকে আমদানি করে থাকি এবং এই মেশিন চীনের একটি স্বনামধন্য ফ্যাক্টরিতে তৈরি করা হয়।
  • ওয়ারেন্টিঃ এই সুগারকেইন বা আখের রস তৈরির মেশিনের সাথে আমারা ১ বছরের ফ্রি সার্ভিস ওয়ারেন্টি দিয়ে থাকি।

স্পেসেফিকেশনঃ 

মেশিন টাইপ : টেবিল টপ

পাওয়ার : ইলেকট্রিক

ভোল্টেজ  : ২২০ ভোল্ট

ওয়াট : ৯৫০ ডাব্লিও

রোলার : ৩ টি

মেইড ইন : চায়না

বডি মেটেরিয়াল : স্টেইনলেস ষ্টীল

মটর : হাই কোয়ালিটি

মটর গিয়ার : হাই কোয়ালিটি

আখের রস ছাকনী : হ্যাঁ

 

প্রোডাক্ট ভিডিও ১

প্রোডাক্ট ভিডিও ২

প্রশ্নঃ ইলেকট্রিক সুগারকেইন বা আখের রসের মেশিন কি?

উত্তরঃ যে মেশিনের মাধ্যমে আখের রস বের করা হয় তাকে সুগারকেইন বা আখের রসের মেশিন বলে। আমাদের এই মেশিন ইলেকট্রিক্যাল পাওয়ার বা কারেন্টে চলে বলে এই মেশিনকে ইলেকট্রিক সুগারকেইন বা আখের রস তৈরির মেশিন বলে। ইলেকট্রিক এই মেশিনের খুবই উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন মটর এবং রোলার ব্যবহার করা হয়েছে বলে এই মেশিনের কার্যক্ষমতা অনেক বেশি।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ ইলেকট্রিক সুগারকেইন বা আখের রস তৈরির মেশিন কিভাবে কাজ করে?

উত্তরঃ এই অটোমেটিক আখের রস তৈরির মেশিন এর কাজ করার পদ্ধতি অনেক সহজ। ইলেকট্রিক্যাল মোটরের সাথে গিয়ারের মাধ্যমে তিনটি রোলার যোগ করা থাকে এই মেশিনে। যেখানে মোটর ঘুরলেই ৩ টি রোলার একসাথে ঘুরতে থাকে। রোলারের উপর একটি গোল পাইপের মত অংশ রয়েছে। সেখানে আখ দিলেই মেশিনটি অটোমেটিকভাবে আখটিকে ভিতরে টেনে নেয় এবং রস বের করে মেশিনের পিছনের দিক দিয়ে আখের ফাইবারগুলোকে ফেলে দেয় একই সাথে রস জমা হয় একটি পাত্রে।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ আখের সম্পূর্ণ রস বের করার জন্য একটি আখ কে কয়বার এই মেশিনের মধ্যে ঢুকাতে হয়?

উত্তরঃ শুধুমাত্র ১ বার। এই সুগারকেইন বা আখের রস তৈরির মেশিনের কার্যক্ষমতা অনেক বেশি হওয়ার কারণে একটি আখকে একবার এই মেশিনের মধ্যে ঢুকালেই এর প্রায় ৯৫% থেকে ৯৮% রস বের হয়ে যায়, যেখানে সাধারন মেশিনে এই কাজ ৩ থেকে ৪ বারে করতে হয়।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ এই মেশিনের কি কি সুবিধা রয়েছে?

উত্তরঃ এই মেশিনের সব থেকে বড় সুবিধা হল এই মেশিন সম্পূর্ণ নিরাপদ এবং স্বাস্থ্যকর। এই সুগারকেইন বা আখের রস তৈরির মেশিনে একটি আখ একবার মেশিনে ঢুকিয়ে দিলে মেশিনটি একবারেই আখের প্রায় সকল রস বের করতে সক্ষম, ২য় বার একই আখ ঢুকাতে হয় না এবং রস বের করা আখের ফাইবার বা আঁশ মেশিনের পিছন দিক দিয়ে বের করে দেয়। এই মেশিনের ব্যবহার খুব সহজ, যে কেউ এই মেশিন চালাতে পারবে খুব সহজেই। মেশিনটি ব্যবহারে বিদ্যুৎ খরচ অনেক কম হয়। এই মেশিনের আরেকটি বড় সুবিধ হল, এই মেশিনের ভিতরে হাত ঢুকে যাওয়ার কোন সম্ভাবনা নাই কারন এই মেশিনের আখ ঢুকানোর জায়গা অনেক ছোট। আসলে সুরক্ষার জন্যই আখ ঢুকানোর জায়গা ছোট করে দেওয়া হয়েছে। অন্যন্য সাধারণ মেশিনের ভিতরে হাত ঢুকে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ এই সুগারকেইন বা আখের রস তৈরির মেশিন কোথায় কোথায় ব্যবহার করা যাবে?

উত্তরঃ মেশিনের ডিজাইন অনেক সুন্দর এবং স্মার্ট হওয়ার কারণে এই মেশিনকে যে কোন পরিবেশে ব্যবহার করা যায়। তাছাড়া আপনি এই মেশিনটি যে কোন জুস বার, রেস্টুরেন্ট, ফুড কোর্ট, কেন্টিন, ফাস্টফুড, স্ট্রিট ফুডসহ যে কোন খাবার সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানে এই মেশিন ব্যবহার করতে পারেন।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ বাজারের অন্যন্য মেশিন আর এই ইলেকট্রিক সুগারকেইন মেশিনের পার্থক্য কি?

উত্তরঃ বাজারে সাধারণত যে মেশিনগুলো পাওয়া যায় তার বেশিরভাগই স্বাস্থ্যকর না, খুবই নিম্নমানের ষ্টীল ব্যবহার করে এই মেশিনগুলো তৈরি করা হয়ে থাকে এবং একটি আখের প্রায় সম্পূর্ন রস বের করার জন্য আখটিকে ৩-৪ বার মেশিনের মধ্যে দিতে হয় যা অনেক কষ্টসাধ্য, অস্বাস্থ্যকর এবং ঝামেলার কাজ।  আমাদের মেশিন এই ধরণের মেশিন থেকে সম্পূর্ণ আলাদা। আমাদের সুগারকেইন বা আখের রস তৈরির মেশিনে ব্যবহার করা হয়েছে ফুড গ্রেডের ষ্টীল, যা স্বাস্থ্যকর। আমাদের মেশিনে একটি আখ একবার দিলে মেশিনটি একবারেই আখে থাকা প্রায় সকল রস বের করতে সক্ষম।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ মেশিনটি চালালে কেমন বিদ্যুৎ খরচ হতে পারে?

উত্তরঃ এই ইলেকট্রিক আখ মাড়াই মেশিনটি ব্যবহারে বিদ্যুৎ খরচ খুবই কম হয়ে থাকে। এই মেশিন দিয়ে প্রতিদিন ১০ ঘন্টা আখের রস বের করলে ৭০ থেকে ৮০ টাকা (একটু বেশি  বা কম হতে পারে) বিদ্যুৎ খরচ হতে পারে।  যা এই ধরণের মেশিনের পক্ষে খুই কম এবং সাশ্রয়ী।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ ব্যাটারি দিয়ে কি এই মেশিন চালানো সম্ভব?

উত্তরঃ জ্বি সম্ভব। সেক্ষেত্রে এই সুগারকেইন বা আখের রস তৈরির মেশিনের কিছু পার্টস পরিবর্তন করে ব্যাটারি চালানোর উপযুক্ত করে নিতে হবে। তবে আমরা ব্যাটারির এই কাজ করি না। আপনি চাইলে মেশিনটি আমাদের কাছ থেকে কিনে নিয়ে ব্যাটারির মাধ্যমে চালনার উপযোগী করে নিতে পারেন।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ এই প্রোডাক্ট এর দাম কেমন?

উত্তরঃ আমরা যেহেতু এই প্রোডাক্ট দেশের বাইরে থেকে ইমপোর্ট করে নিয়ে আসি তাই বিশ্ববাজারের দাম, ভ্যাট, ট্যাক্স ইত্যাদি খরচের উপর ভিত্তি করে আমাদের একেক সময় একেক রকম দাম পড়ে। তাই বর্তমান দাম জানতে নিচের দেওয়া মোবাইল নাম্বারে দয়া করে আমাদেরকে কল করুন।

আমাদের প্রতিনিধিগণ আপনাকে লেটেস্ট প্রাইস দিয়ে দিবে।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ ঢাকা এবং ঢাকার বাইরে এই প্রোডাক্ট কিভাবে পাবো?

উত্তরঃ আপনার লোকেশন যদি ঢাকা হয়ে থাকে তবে আপনি সরাসরি আমাদের অফিসের ঠিকানায় চলে আসতে পারেন। অফিসে এসে প্রোডাক্ট সামনাসামনি দেখে, প্রোডাক্ট চেক করে সব কিছু ঠিক থাকলে ক্যাশ টাকা দিয়ে প্রোডাক্ট কিনে নিয়ে যেতে পারেন। আর আপনি যদি ঢাকার বাহিরে অবস্থান করেন এবং আমাদের অফিসে আসা যদি আপনার সম্ভব না হয় তাহলে, আপনি চাইলে কুরিয়ারের কন্ডিশনাল পেমেন্টের মাধ্যমেও আমাদের প্রোডাক্ট ডেলিভারি নিতে পারেন। সেক্ষেত্রে আপনার নাম, মোবাইল নাম্বার এবং ঠিকানার সাথে আমাদেরকে ২০০০ টাকা বিকাশে বা ব্যাংকে এ্যাডভান্স করতে হবে। এ্যাডভান্স পেমেন্ট পাওয়ার পর আমরা প্রোডাক্ট কুরিয়ারে বুকিং করে দিব, তার পরবর্তী ১-২ দিনের মধ্যে আপনি কুরিয়ারে মাল পেয়ে যাবেন। কুরিয়ারের মাধ্যমে প্রোডাক্ট ডেলিভারি নিলে কুরিয়ারের সকল চার্জ কাস্টমারকে বহন করতে হবে।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ এই প্রোডাক্ট কেনার জন্য পেমেন্টের সিস্টেম কি?

উত্তরঃ আমাদের অফিসে এসে প্রোডাক্ট কিনে নিয়ে গেলে প্রোডাক্টের সম্পূর্ণ টাকা ক্যাশ পেমেন্ট করতে হবে। আর যদি কুরিয়ারের কন্ডিশনাল পেমেন্টে প্রোডাক্ট ডেলিভারি নিতে চান সেক্ষেত্রে আমাদেরকে ২০০০ টাকা বিকাশে বা ব্যাংকে এ্যাডভান্স করতে হবে এবং বাকি টাকা মাল ডেলিভারি নেওয়ার সময় কুরিয়ার পেমেন্ট করতে হবে।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ কুরিয়ার খরচ আনুমানিক কেমন হবে?

উত্তরঃ এটা নির্ভর করে প্রোডাক্টের সাইজের উপর, মানে কার্টোন যত বড় হবে তার উপর নির্ভর করবে কুরিয়ারের চার্জ কত হবে। সাধারনত প্রোডাক্টের সাইজ এবং কার্টুন করার খরচ অনুযায়ী ২০০০ টাকা থেকে শুরু করে ৩০০০ টাকা পর্যন্ত কুরিয়ার খরচ হতে পারে।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ বিক্রির পর সাপোর্ট পাবো কিভাবে?

উত্তরঃ আমাদের সার্ভিস বা সাপোর্টের নাম্বারে কল দিয়ে আপনার প্রোডাক্টের সমস্যার কথা জানালেই আমরা আপনাকে সাপোর্ট দিব। আমরা সাধারণত আমাদের প্রোডাক্টের ১ বছরের ফ্রি সার্ভিস ওয়ারেন্টি দিয়ে থাকি। এই সময়ের মধ্যে প্রোডাক্টের যে কোন ধরণের সমস্যা হলে আমরা বিনা মূল্যে সার্ভিস করে দিব এবং এর পরে হলে সার্ভিস চার্জ দিতে হবে। প্রোডাক্ট সার্ভিস করতে যদি কোন পার্টস প্রয়োজন হয় তাহলে, কাস্টমার তার মূল্যে পরিশোধ করবে।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ ঢাকায় বা বাংলাদেশে এই প্রোডাক্ট কে বা কারা বিক্রি করে? কিভাবে তাদের সাথে এই প্রোডাক্ট কেনার জন্য যোগাযোগ করতে পারি? কোন প্রোডাক্ট লিঙ্ক দিতে পারবেন কি?

উত্তরঃ এই প্রোডাক্ট নবারুন ইন্টারন্যাশনাল বিক্রি করে থাকে।

অটোমেটিক আখের রস তৈরির মেশিন  ক্রয় করার জন্য নবারুন ইন্টারন্যাশনালের সাথে যোগাযোগ করার

মোবাইল নাম্বারঃ ০১৭১১ ৯৯৮৬২৬

ইমেইলঃ sales@nobarunbd.com

প্রোডাক্ট লিংকঃ https://www.nobarunbd.com/sugar-cane-juice-maker-machine-price-in-bangladesh

[yuzo_related]