অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড – গাড়ি হামলা থেকে ১০০% সুরক্ষা

  • হাই কোয়ালিটি সিকিউরিটি প্রোডাক্টঃ বর্তমান বিশ্বে মানুষ সব থেকে বেশি চিন্তিত তাদের সিকিউরিটি নিয়ে, আমরাও তার ব্যাতিক্রম নই। আমাদের এই অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড হাই সিকিউরিটি প্রোডাক্ট হিসেবে ব্যবহার হয়ে আসছে উন্নত দেশ গুলোতে। বোলার্ড কিভাবে উচ্চ সিকিউরিটি দিয়ে থাকে তার উত্তরে বলব, এটি সাধারণত যে কোন স্থাপনার প্রধান প্রবেশদ্বারে সেট করা থাকে এবং বিনা অনুমুতিতে কোন গাড়ি বা বাহন এই বিশেষ বোলার্ড অতিক্রম করে পারবে না কোন ভাবেই এবং কোন দুষ্কৃতিকারী যদি কোন গাড়ি দ্রুত গতিতে চালিয়ে এসে এই বোলার্ড অতিক্রম করতে চায় তাহলে গাড়িটি বোলার্ডের সাথে বাধাপ্রাপ্ত হবে এবং গাড়িটি এক্সিডেন্ট করে লণ্ডভণ্ড হয়ে যাবে এবং বোলার্ডটি থাকবে আগের মতই। যার ফলে আপনি পাবেন নিছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা।
  • বোলার্ডের ধরনঃ পার্কিং বোলার্ড সাধারণত দুই ধরণের হয়ে থাকে, ম্যানুয়াল এবং অটোম্যাটিক। ম্যানুয়াল বোলার্ড সাধারণত ইনস্টল করার পর চাবির সাহায্যে লাগানো বা চাইলে খোলে রাখা যায়। আর অটোম্যাটিক বোলার্ড রিমোট, সুইচ বা সেন্সরের মাধ্যমে উপরে তোলা বা নিচে নামানো হয়ে থাকে। আমাদের এই অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড সম্পূর্ণ অটোম্যাটিক, যা ব্যবহারকারীকে দিবে সর্বোচ্চ নিরাপত্তার পাশাপাশি আধুনিকতার ছোঁয়া।
  • দ্রুত অপারেট করা যায়ঃ নিরাপত্তার সাথে সময়ের একটা গুরুত্ব অবশ্যই রয়েছে। অটোম্যাটিক এই বোলার্ডে হাইড্রোলিক সিস্টেম ব্যবহার করা হয়েছে যা খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে উপরে উঠে এবং নিচে নামতে সক্ষম। এই হাইড্রোলিক সিস্টেম বোলার্ড ৫ থেকে ৮ সেকেন্ড সময় নেয় উপরে উঠতে বা নিচে নামতে।
  • ক্র্যাশ রেটেডঃ অটোমেটিক অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড সাধারণত ক্র্যাশ রেটেড হয়ে থাকে। সাধারণত বোলার্ড কে৪ থেকে শুরু করে কে১২ পর্যন্ত এবং আইপি৬৭ সহ অনেক ধরণের রেটিং হয়ে থাকে। কাস্টমারের চাহিদা অনুযায়ী আমরা বিভিন্ন রকম রেটিং এর বোলার্ড বিক্রি করে থাকি। বাংলাদেশের বাজারে সাধারণত কে৪ এবং আইপি৬৭ রেটিং এর বোলার্ডের চাহিদা বেশি, তাই কে৪ এবং আইপি৬৭ রেটেড বোলার্ড আমরা আমাদের স্টকে সবসময় রাখার চেষ্টা করি। কাস্টমার অন্যন্য রেটেড বোলার্ড অর্ডার করলে আমরা নির্দিষ্ট সময় নিয়ে বোলার্ড ইমপোর্ট করে দেই।
  • হাইড্রলিক সিস্টেমঃ অটোমেটিক টেলিস্কোপিক পার্কিং বোলার্ডে সাধারণত হাইড্রোলিক সিস্টেম ব্যবহার করা হয়, যার ফলে কোন রকম ত্রুটি ছাড়াই বোলার্ড ব্যবহার করা যায় বছরের পর বছর। এই সিস্টেম ব্যবহারে সাধারণ সিস্টেম থেকে বোলার্ড খুবই দ্রুত উপরে উঠানো এবং নিচে নামানো যায়। তাছাড়া সাধারণ সিস্টেম থেকে হাইড্রোলিক সিস্টেম বোলার্ডকে আরো অনেক বেশি শক্তিশালী করে তোলে এবং হাইড্রোলিক সিস্টেমে মেইনটেন্যান্স অনেক কম প্রয়োজন হয় বলে এর চাহিদা অনেক বেশি।
  • ওয়াটার পাম্পঃ অটোমেটিক পার্কিং বোলার্ডের ভিতরে যেন কোন পানি জমতে না পারে সেজন্য মাটির নিচে একটি ওয়াটার ট্যাংক তৈরি করা হয় বোলার্ডের সাথেই। বোলার্ডের পাশ দিয়ে যদি কোন পানি বোলার্ডের হাউজে প্রবেশ করে তবে সাথে সাথেই সেই পানি ওয়াটার ট্যাংকে চলে যায়, তারপর ওয়াটার ট্যাংকে থাকা অটোমেটিক ওয়াটার পাম্প চালু হয়ে যায় এবং সাথে সাথে পানিকে মেইন ড্রেনে ফেলে দেয়। মানে বুঝা গেল বোলার্ডের হাউজে কোন পানি ঢুকে গেলে পানিকে সাথে সাথে মেইন ড্রেনে ফেলে দিবে এর সাথে থাকা অটোমেটিক ওয়াটার পাম্প সিস্টেম।
  • ইনস্টলেশনঃ অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড ইনস্টল করা তুলনামূলক কঠিন এবং সময় সাপেক্ষ। আমাদের অভিজ্ঞ টেকনিক্যাল টিম বোলার্ড ইনস্টলেশনে ব্যাপারে সার্টিফিকেট প্রাপ্ত এবং বাংলাদেশে খুবই সুনামের সাথে আমরা বোলার্ডের ইনস্টলেশন করে থাকি এবং বিক্রয় পরবর্তী সার্ভিস সাপোর্ট দিয়ে থাকি।
  • ওয়ারেন্টিঃ অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড এর সাথে আমরা সাধারণত ২ বছরের ফ্রি সার্ভিস ওয়ারেন্টি দিয়ে থাকি। এই সময়ের মধ্যে প্রোডাক্টের যে কোন সমস্যা হলে আমরা ফ্রি অফ কস্ট সার্ভিস দিয়ে থাকি এবং এই সময়ের পরে সমস্যা হলে চার্ট অনুযায়ী আমরা চার্জ করে থাকি।

 

প্রোডাক্ট এর সকল প্রকার স্পেসেফিকেশন

•অপারেশন •হাইড্রোলিক সিস্টেম
•টিউব ডায়ামিটার•২৭৩ এম এম
•সাইজ •( ৬৬০ * ৮৩০ * ১১৭০ ) এম এম
•ওয়াল থিকনেস •৮ এম এম
•ব্রেক আউট রেজিস্ট্যান্স•৫,৮৫,০০০ জে
•এক্সেল লোড •১৫ এম এম
•অপারেশন টেম্পারেচার •-৪০ ডিগ্রী টু +৬০ ডিগ্রী
•প্রোটেকশন লেভেল•আইপি ৬৭
•পাওয়ার •২২০ ভোল্ট, সিঙ্গেল ফেজ

অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড যেভাবে কাজ করে ভিডিও দেখে নিন

চলুন জেনে নেই অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড সম্পর্কে প্রচলিত কিছু প্রশ্ন ও উত্তরঃ

প্রশ্নঃ অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড কি?

উত্তরঃ বোলার্ড বলতে খাড়া কোন ব্যারিয়ার পোস্ট বা পোল বা দন্ডকে বোঝায়। অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড একটি হাইয়ার সিকিউরিটি প্রোডাক্ট। যার মাধ্যমে সাধারণত গাড়ি চলচলকে নিয়ন্ত্রণ করা হয়ে থাকে এবং গাড়ি হামলা থেকে স্থাপনাকে রক্ষা করা হয়ে থাকে। ১৭৬৬ সালে সর্বপ্রথম বোলার্ড লন্ডনের একটি ভবনের সামনে ব্যবহার করা হয়েছিল। উন্নত দেশগুলোতে বোলার্ডের প্রচুর ব্যবহার হয় এবং বর্তমানে বাংলাদেশে এই প্রোডাক্ট ধীরে ধীরে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড কেন ইউজ করা হয়?

উত্তরঃ এক কথায় বলতে গেলে, উচ্চ নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে যে কোন ধরণের গাড়ির হামলা থেকে জানমাল এবং স্থাপনা রক্ষা করা সহ সকল গাড়ির চলাচল নিয়ন্ত্রণ করার জন্য অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ অটোম্যাটিক অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড কিভাবে কাজ করে?

উত্তরঃ অটোম্যাটিক অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড সম্পূর্ণ অটোম্যাটিকভাবে কাজ করে। ব্যবহারকারীর কাজ হল, ব্যবহারকারী শুধু সুইচ চাপবেন অথবা রিমোট চাপবেন আপনার কাজ শেষ। রিমোট বা সুইচ চাপার সাথে সাথেই বোলার্ড উপরে উঠবে এবং নিচে নামবে।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ কোন কোন জায়গায় এটা ব্যবহার করা হয়ে থাকে?

উত্তরঃ যে সকল স্থানে উচ্চ নিরাপত্তার প্রয়োজন বা যে সকল স্থানে দুবৃত্তদের হামলা হওয়ার সম্ভাবনা থাকে যে সকল স্থানে ব্যবহার করা হয় অটোম্যাটিক অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড। যা উচ্চ নিরাপত্তার পাশাপাশি আপনাকে দিবে আধুনিকতা ছোঁয়া। উন্নত দেশগুলোতে প্রায় সকল জায়গায়ই ব্যবহার করা হয় বোলার্ড। বাংলাদেশের প্রেক্ষিতে অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড সেনা ঘাটি, বিপনীবিতান, বিনোদন পার্ক, হাসপাতাল, তারকা হোটেল, সরকারী / বেসরকারি অফিস, এম্বাসি, মন্ত্রণালয়, সামরিক অফিস, বিদেশী প্রতিষ্ঠান, কোটনৈতিক বা রাজনৈতিক ব্যাক্তিত্য বাসভবন বা অফিসসহ সকল গুরুত্বপূর্ন স্থাপনায় ব্যবহার করতে পারেন।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ডটি কি আলো জ্বালতে সক্ষম?

উত্তরঃ অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড যখন উপরে উঠে না নিচে নামে তখন এর উপরের অংশে থাকা লাইট জ্বলে এতে যেমন এর আশেপাশের অন্ধকার দূর হয় পাশাপাশি অন্য রকম একটা শৈল্পিকতার সৃষ্টি হয়।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড কি দিয়ে তৈরি করা হয়ে থাকে?

উত্তরঃ অনেকগুলো ছোট বড় পার্টস মিলে একটি বোলার্ড তৈরি হয়। তার মধ্যে প্রধান অংশ হল এর বাহিরের বডি এবং হাইড্রোলিক সিস্টেম। অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড এর বাহিরের বডি তৈরি করা হয় প্রসেসিং করা শিট দিয়ে যা অনেক বেশি পরিমান শক্তিশালী এবং মজবুদ হয়। আর এতে ব্যবহার করা হয় অতি উন্নমানের হাইড্রোলিক সিস্টেম, সাধারণত জাহাজে যে গ্রেডের হাইড্রোলিক সিস্টেম ব্যবহার করা হয় বোলার্ডেও সেই রকম গ্রেডের হাইড্রোলিক সিস্টেম ব্যবহার করা হয়ে থাকে। বাকি অংশ গুলো নিজস্ব ফ্যাক্টরিতে উন্নমানের কাঁচামাল দ্বারা তৈরি করা হয় প্রশিক্ষিত টেকনিশিয়াদের সাহায্যে।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ বিদ্যুৎ চলে গেলে অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড অপারেট করে কিভাবে?

উত্তরঃ বিদ্যুৎ চলে গেলে অন্যন্য পাওয়ারের সাহায্যে অটোম্যাটিক অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড অপারেট করা যাবে। যেমন অনলাইন আইপিএস, জেনারেটর ও সোলার সিস্টেমসহ অন্যন্য সকল পাওয়ার সিস্টেম।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ মাটির নিচে যেহেতু সেট করা হয় সেহেতু বৃষ্টি বা বন্যা হলে করনীয় কি?

উত্তরঃ বৃষ্টি বা অন্যার সময় অটোম্যাটিক অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড এর ক্ষতি হইবার চান্স বেশী থাকে। কারন বৃষ্টি বা বন্যার সময় যে অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড এর সবকিছুই যদি পানির নিচে ডুবে যায় তাহলে আসলেই কিছু করার থাকবে না। কিন্তু বৃষ্টি হলে এবং সেই বৃষ্টির পানি যদি অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ডটি পুরো ডুবিয়ে ফেলতে না পারে তপবে কোন প্রকার ঝামেলা হয়না।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ এটা কি টোল প্লাজায় ব্যবহার করা ঠিক হবে?

উত্তরঃ হ্যাঁ। উচ্চ নিরাপত্তা রক্ষা করার জন্য টোল প্লাজা সহ সকল গুরুত্বপূর্ণ যায়গায় ব্যবহার করতে পারেন এই অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড। তবে গাড়ি পাস হইবার জন্য যে ৫-৮ সেকেন্ড সময়ের দিকটা খেয়াল করেই সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিৎ।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড কত ওয়াটের হয়ে থাকে?

উত্তরঃ অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড সাধারণত সিঙ্গেল ফেজ, ২২০ ভোল্ট, ৫০-৬০ এইচজেড এবং ৩০০ ওয়াটের হয়ে থাকে। অটোম্যাটিক অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড হিসেবে যা অনেক বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ মাটির নিচে কতটুকু গর্ত করা লাগে এই অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড ইন্সটল করার জন্য?

উত্তরঃ অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড ইনস্টল করার জন্য রাস্তার উচ্চতা থেকে মাটির নিচে সাধারণত ৭ থেকে ৮ ফিট গর্ত করতে হয় এবং ওয়াটার ট্যাংক তৈরি করার জন্য সাধারনত রাস্তার উচ্চতা থেকে মাটির নিচে সাধারণত ১০ থেকে ১২ ফিট গর্ত করতে হয়।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড কি সুইচ ছাড়া রিমোটেও নিয়ন্ত্রন করা যায়?

উত্তরঃ অটোমেটিক অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড সুইচ ছাড়া রিমোটেও নিয়ন্ত্রন করা যায়। কিন্তু ম্যানুয়াল অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড রিমোট বা সুইচ কোন কিছু দিয়েই নিয়ন্ত্রন করা যায় না, হাতের সাহায্যে চাবি ব্যবহার করে খুলতে বা লাগাতে হয়।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ কত টনের বা ওজনের গাড়ি এসে ধাক্কা দিলে বোলার্ড ভেঙে গাড়ি ভিতরে প্রবেশ করতে পারবে না?

উত্তরঃ অটোমেটিক অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড এর জন্য এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন, যদিও এটা নির্ভর করে বোলার্ডের ক্ষমতার উপর। সাধারণত অটোমেটিক টেলিস্কোপিক পার্কিং বোলার্ডে ৫ টন থেকে শুরু করে ২০ টনের গাড়ি ধাক্কা দিলেও বোলার্ড ভেঙে গাড়ি ভিতরে যেতে পারবে না।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ কত সেকেন্ডে অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড অপারেশন করা সম্ভব?

উত্তরঃ সাধারণত ৫ থেকে ৮ সেকেন্ড সময়ের মধ্যে অটোমেটিক অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড এর অপারেশন করা সম্ভব। যদিও এই সময় কাস্টমাইজড করেও বোলার্ডের অপারেশন করা সম্ভব।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ডএর লাইফটাইম কতদিন?

উত্তরঃ অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড এর লাইফটাইম ২০ থেকে ৪০ বহর হতে পারে।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ কোন কোন দেশ অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড বানায়? কোন দেশের প্রোডাক্ট সবাইচাইতে ভালো কোয়ালিটির হয়ে থাকে?

উত্তরঃ উন্নত দেশগুলোর মধ্যে অনেক দেশই মর্ডান সিকিউরিটি ইকোইপমেন্ট তৈরিতে অনেক বিশ্বস্ত। তাদের মধ্যে অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড চায়না, ইতালি, ইউক্রেন, ইউএসএ, কুরিয়া, তুর্কি এবং যুক্তরাজ্য সহ অনেক দেশ তৈরি করে থাকে। প্রোডাক্টের গুণগত মান অনুযায়ী চায়না, ইউক্রেন এবং ইউএসএ মেইড প্রোডাক্ট অনেক বেশি ভাল হয়ে থাকে।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ডএর দাম কেমন?

উত্তরঃ আমরা যেহেতু এই প্রোডাক্ট দেশের বাইরে থেকে ইমপোর্ট করে নিয়ে আসি তাই বিশ্ববাজারের দাম, ভ্যাট, ট্যাক্স ইত্যাদি খরচের উপর ভিত্তি করে আমাদের একেক সময় একেক রকম দাম পড়ে। তাই বর্তমান দাম জানতে নিচের দেওয়া মোবাইল নাম্বারে দয়া করে আমাদেরকে কল করুন।

আমাদের প্রতিনিধিগণ আপনাকে লেটেস্ট প্রাইস দিয়ে দিবে।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ ঢাকা এবংঢাকার বাইরে অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড কিভাবে পাবো?

উত্তরঃ আপনার লোকেশন যদি ঢাকা হয়ে থাকে তবে আপনি সরাসরি আমাদের অফিসের ঠিকানায় চলে আসতে পারেন। অফিসে এসে প্রোডাক্ট সামনাসামনি দেখে, প্রোডাক্ট চেক করে সব কিছু ঠিক থাকলে ক্যাশ টাকা দিয়ে প্রোডাক্ট কিনে নিয়ে যেতে পারেন। আর আপনি যদি ঢাকার বাহিরে অবস্থান করেন এবং আমাদের অফিসে আসা যদি আপনার সম্ভব না হয় তাহলে, আপনি চাইলে কুরিয়ারের কন্ডিশনাল পেমেন্টের মাধ্যমেও আমাদের প্রোডাক্ট ডেলিভারি নিতে পারেন। সেক্ষেত্রে আপনার নাম, মোবাইল নাম্বার এবং ঠিকানার সাথে আমাদেরকে ১০০০ টাকা বিকাশে বা ব্যাংকে এ্যাডভান্স করতে হবে। এ্যাডভান্স পেমেন্ট পাওয়ার পর আমরা প্রোডাক্ট কুরিয়ারে বুকিং করে দিব, তার পরবর্তী ১-২ দিনের মধ্যে আপনি কুরিয়ারে মাল পেয়ে যাবেন।কুরিয়ারের মাধ্যমে প্রোডাক্ট ডেলিভারি নিলে কুরিয়ারের সকল চার্জ কাস্টমারকে বহন করতে হবে।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড কেনার জন্য পেমেন্টের সিস্টেম কি?

উত্তরঃ আমাদের অফিসে এসে প্রোডাক্ট কিনে নিয়ে গেলে প্রোডাক্টের সম্পূর্ণ টাকা ক্যাশ পেমেন্ট করতে হবে। আর যদি কুরিয়ারের কন্ডিশনাল পেমেন্টে প্রোডাক্ট ডেলিভারি নিতে চান সেক্ষেত্রে আমাদেরকে ১০০০ টাকা বিকাশে বা ব্যাংকে এ্যাডভান্স করতে হবে এবং বাকি টাকা মাল ডেলিভারি নেওয়ার সময় কুরিয়ার পেমেন্ট করতে হবে।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ কুরিয়ার খরচ আনুমানিক কেমন হবে?

উত্তরঃ এটা নির্ভর করে প্রোডাক্টের সাইজের উপর, মানে কার্টোন যত বড় হবে তার উপর নির্ভর করবে কুরিয়ারের চার্জ কত হবে। সাধারনত প্রোডাক্টের সাইজ অনুযায়ী ২০০ টাকা থেকে শুরু করে ২০০০ টাকা পর্যন্ত কুরিয়ার খরচ হতে পারে।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ বিক্রির পর সাপোর্ট পাবো কিভাবে?

উত্তরঃ আমাদের সার্ভিস বা সাপোর্টের নাম্বারে কল দিয়ে আপনার অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড সমস্যার কথা জানালেই আমরা আপনাকে সাপোর্ট দিব।আমরা সাধারণত আমাদের প্রোডাক্টের ১ বছরের ফ্রি সার্ভিস ওয়ারেন্টি দিয়ে থাকি। এই সময়ের মধ্যে প্রোডাক্টের যে কোন ধরণের সমস্যা হলে আমরা বিনা মূল্যে সার্ভিস করে দিব এবং এর পরে হলে সার্ভিস চার্জ দিতে হবে। প্রোডাক্ট সার্ভিস করতে যদি কোন পার্টস প্রয়োজন হয় তাহলে, কাস্টমার তার মূল্যে পরিশোধ করবে।

———————————————————————————–

প্রশ্নঃ ঢাকায় বা বাংলাদেশে এই প্রোডাক্ট কে বা কারা বিক্রি করে? কিভাবে তাদের সাথে এই প্রোডাক্ট কেনার জন্য যোগাযোগ করতে পারি? কোন প্রোডাক্ট লিঙ্ক দিতে পারবেন কি?

উত্তরঃ এই প্রোডাক্ট নবারুন ইন্টারন্যাশনাল বিক্রি করে থাকে।

অটোমেটিক রাইজিং বোলার্ড ক্রয় করার জন্য নবারুন ইন্টারন্যাশনালের সাথে যোগাযোগ করার মোবাইল নাম্বারঃ ০১৭১১ ৯৯৮৬২৬

ইমেইলঃ sales@nobarunbd.com

প্রোডাক্ট লিংকঃ https://www.nobarunbd.com/removable-crash-rated-telescopic-parking-bollard-in-bangladesh

[yuzo_related]
error: Content is protected !!